ফরম নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন

নতুন ভোটার আইডি কার্ডের জন্য আবেদন করেছেন, নির্বাচন অফিস থেকে ভোটার স্লিপও দিয়েছে। ফরম নাম্বার দিয়ে কিভাবে NID Card Download link করতে হয় তা না জানার কারণে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রটি এখনো ডাউনলোড করতে পারেননি। তাহলে আপনি সঠিক পথেই আছেন। আমারা এখন ভোটার স্লিপ (voter form) দিয়ে এন আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম জানবো।

ফরম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য অ্যাকাউন্ট রেজিষ্টার করার সময় যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র / ফরম নম্বর / জন্মতারিখ ভুল দেখায়  এই সমস্যার সমাধান করার কৌশল দেখানো হবে। তাই এই লেখাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে।

যারা নতুন ভোটার হওয়ার আবেদন link করেছেন তাদের আইডি কার্ড অনলাইন হয়ে গেলে মোবাইলে এস এম এস করে তা ইসি অফিস অথবা অনলাইন থেকে ডাউনলোড করতে বলা হয়। আপনিও যদি এই মেসেজ পেয়ে থাকেন তাহলে ভোটার নিবন্ধন স্লিপ দিয়ে অনলাইন থেকে আইডি কার্ড বের করতে পারবেন।

ফরম নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড
ভোটার স্লিপ দিয়ে আইডি কার্ড ডাউনলোড

ভোটার স্লিপ দিয়ে আইডি কার্ড ডাউনলোড

ভোটার স্লিপ বা নিবন্ধন ফরম নম্বর দিয়ে অনলাইনে আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য NID website  https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/claim-account প্রবেশ করে স্লিপ নাম্বার, জন্মতারিখ দিয়ে অ্যাকাউন্ট তৈরি করুন। তারপর ফেইস ভেরিফিকেশন করে NID Application System থেকে আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন।

নিবন্ধন ফরম ব্যাবহার করে এনাইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য কিছু সরঞ্জাম প্রয়োজন হবে। অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র বের করতে যা যা লাগবে তা লিস্ট আকারে দেয়া হল-

voter slip
  • ভোটার নিবন্ধন ফরম / ভোটার স্লিপ
  • মোবাইল নাম্বার
  • ঠিকানা (বর্তমান ও স্থায়ী)
  • স্মার্ট ফোন

উপরের উপাদানগুলো সাথে নিয়ে, যার আইডি কার্ড সে নিজে উপস্থিত থাকতে হবে Face verification করার জন্য। আইডি কার্ড ডাউনলোড করার প্রয়োজনীয় ধাপ ছবি সহকারে বর্ণনা করা হলো-

NID একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন

অনলাইন থেকে আপনার NID Card ডাউনলোড করার জন্য NID Application System link সাইটে ভিজিট করুন। নিচের ছবির মত ফরম নম্বর ও জন্মতারিখ ইনপুট করার ফরম দেখতে পাবেন। আপনার ভোটার স্লিপের নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে ফরম পূরণ করুন। এরপর সিকিউরিটি ক্যাপচা দিয়ে “সাবমিট” করুন।

ফরম নাম্বার দিয়ে এনআইডি কার্ড ডাউনলোড

সঠিক স্লিপ / ফরম নাম্বার ও জন্মতারিখ দেয়ার পরেও যদি (ERROR) দেখায় তাহলে ৯সংখ্যার ফরম নাম্বারের পূর্বে NIDFN যুক্ত করে ১৪ সংখ্যার নাম্বার দিলে এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। বিষয়টি আরো সহজ করার জন্য একটি উদাহরণ দিচ্ছি,

ধরে নিচ্ছি, আপনার স্লিপ নাম্বার 695842387 এটাকে NIDFN695842387 এভাবে লিখে সাবমিট করলে কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

ঠিকানা যাচাই

স্লিপ নাম্বার এবং জন্মতারিখ সঠিক ইনপুট করলে এবং আপনার আইডি কার্ড অনলাইনে চলে আসলে এই ধাপে আপনাকে আপনার বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা যাচাই করতে বলা হবে। বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা ড্রপ ডাউন মেনু থেকে নির্বাচন করে দিতে হয়।

ঠিকানা যাচাই করার পদ্ধতির মধ্যে ব্যক্তির বর্তমান ও স্থানীয় ঠিকানার বিভাগ, জেলা এবং উপজেলে নির্বাচন করে দিতে হয়। আইডি কার্ডের আবেদন ফরমে যে ঠিকানা দেয়া ছিলো সেই একই ঠিকানা এখানে দিতে হবে।

আইডি কার্ডের ঠিকানা যাচাই

সঠিক ভাবে ঠিকানা নির্বাচন করা হয়ে গেলে পরবর্তী বাটনে চাপতে হবে। এর পরের ধাপে মোবাইল নাম্বার ভেরিফাই করতে বলা হবে।

মোবাইল নাম্বার Verification

মোবাইল নাম্বার যাচাই করার জন্য আপনার নাম্বারে একটি ৬ সংখ্যার OTP কোড পাঠানো হবে। আপনার মোবাইলে আসা এই কোড বসিয়ে আপনার নাম্বারটি ভেরিফাই করতে হবে। ভোটার আইডি কার্ড করার সময় যে মোবাইল নাম্বারটি দিয়েছিলেন সেটি যদি আপনার কাছে না থাকে তা হলে নাম্বার পরিবর্তন করার সুযোগ রয়েছে।

মোবাইল নাম্বার চেঞ্জ করার জন্য বহাল বাটনের পাশেই “মোবাইল পরিবর্তন” অপশন দেখতে পাবেন। মোবাই পরিবর্তন করার জন্য আপনার অন্য একটি সচল মোবাইল নাম্বার ব্যাবহার করুন। আগের মতই নতুন নাম্বারে OTP Code যাবে, সে কোড দিয়ে verify করুন।

mobile verification for nid card

ফেইস ভেরিফিকেশন

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোডের জন্য অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশনের শেষের দিকে ব্যক্তির ফেইস ভেরিফিকেশন করতে হয়। ফেস ভেরিফাই করার জন্য আপনার ফোনে NID Wallet ইন্সটল করে নিতে হবে। NID ওয়ালেট দিয়ে ওয়েব সাইটে দেখানো QR কোড স্কেন করতে হবে। 

QR code ফেইস ভেরিফিকেশন

Face Verification করার সময় ব্যক্তির চোখের পলক এবং মাথা ডানে-বামে নাড়াতে হয়। ব্যক্তিকে সনাক্ত হয়ে গেলে অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার জন্য আনুমোদন দেয়া হয়। Face verify এর মধ্য দিয়ে সফল ভাবে জাতীয় পরিচয়পত্র ওয়েবসাইটে আপনার একাউন্ট তৈরি হয়ে গেলে, আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ডটি ডাউনলোড করার জন্য প্রস্তুত।

NID Card Download

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য অ্যাকাউন্টের ড্যাশবোর্ড প্রবেশ করতে হবে। ফেস ভেরিফিকেশন সফল হলে আপনাকে আপনার NID প্রোফাইলে নিয়ে যাবে। এখন হোম মেনুতে প্রবেশ করতে হবে।

আপনি এখন আপনার ছবি ও আপনার পরিচয় পত্রের কিছু তথ্য এবং তার পাশাপাশি এই পেজের নিচের দিকে ডাউনলোড নামক বাটন দেখতে পারবেন। NID Card Download করার জন্য ডাউনলোড বাটনে চাপুন। তারপর আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারে জাতীয় পরিচয় পত্রের PDF Download হয়ে যাবে।

NID Card Download

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড হয়ে গেলে এটি প্রিন্ট করে লেমেনেটিং করে নিলে অরজিনাল জাতীয় পরিচয় পত্রে পরিনত হবে। এই অনলাইন হতে ডাউনলোড করা এনআইডি কার্ড এবং নির্বাচন কমিশন থেকে প্রদান করা NID Card এর মধ্যে কোন প্রকার পার্থক্য নেই। 

ভোটার স্লিপ দিয়ে আইডি কার্ড ডাউনলোড করা নিয়ে প্রশ্ন উত্তর

NID অনলাইন কপি ডাউনলোড করবো কি করে?

nid ওয়েবসাইটে লগইন করে অ্যকাউন্ট ড্যাশবোর্ড থেকে ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। একাউন্টের হোম মেনুর নিচের দিকে ডাউনলোড বাটন দেখতে পাবেন। এখানে ক্লিক করে nid অনলাইন কপি ডাউনলোড করা যাবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র / ফরম নম্বর / জন্মতারিখ ভুল দেখানোর কারন কি?
অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার সময় জাতীয় পরিচয়পত্র / ফরম নম্বর / জন্মতারিখ আছে এটি দেখানোর প্রথম কারন হতে পারে আপনার আইডি কার্ড এখনো অনলাইনে আসেনি। ফরম নাম্বারের পূর্বে NIDFN যুক্ত না করে শুধু স্লিপ নাম্বার দিলেও এরকম দেখায়।

ভোটার স্লিপ হারিয়ে গেলে কি করব?

আইডি কার্ড ডাউনলোড করার আগ পর্যন্ত ভোটার নিবন্ধন ফরম বা স্লিপ নাম্বর খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নিবন্ধিত স্লিপ হারিয়ে গেলে উপজিলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করতে হবে। তাদের পরামর্শে প্রয়োজনে থানায় জিডি করে উপজেলা জমা দেয়ার প্রয়োজন হতে পারে। অধিকাংশ সময় জিডি ছাড়াই ভোটার ফরম নাম্বার অথবা আইডি কার্ডের নাম্বার জানিয়ে দেয়।

Similar Posts

2 Comments

  1. অপ্রত্যাশিত সমস্যার জন্য দুঃখিত। একটু পরে আবার চেষ্টা করুন। এটা দেখাচ্ছে কাজ হচ্ছে না। উপাই কি??

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *